দুরুদে নারিয়া (durude nariya) – দুরুদে নারিয়া ফজিলত ও পড়ার নিয়ম

BanglaTeach
E-Haq
Digital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking,...

Sharing is caring!

দুরুদে নারিয়া
দুরুদে নারিয়া

দুরুদে নারিয়া – durude nariya হলো প্রচলিত দরুদগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি। মানুষগণ সাধারণত বাস্তবিক জীবনে নানা কারণে বিভিন্ন দিক থেকে উপকৃত হওয়ার জন্যই ভিন্ন ভিন্ন দরুদ পড়ে থাকে। আর ঠিক একই ভাবে দুরুদে নারিয়াও পড়া হয়ে থাকে। ( দরুদে তুনাজ্জিনাদরুদে ফুতুহাত সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন )

কিন্তু আপনাকে যদি বলি দুরুদে নারিয়া কি? দুরুদে নারিয়া অর্থ হলো আগুন থেকে বাঁচার দোয়া। এটির  সাধারণত মূল নাম হলো সালাতে কুরতুবিয়্যাহ। মূলত যে দোয়া বা আমল করিলে মহান আল্লাহ তা’আলা  মাকসাদকে পূর্ণ করেন, সে আমল বা দোয়াকেই দুরুদে নারিয়া বলে।

যাইহোক, যেহেতু আমরা ইতিমধ্যে দুরুদে নারিয়ার সংজ্ঞা জেনেছি, তাহলে এবার চলুন ক্রমান্বয়ে এর আরবি সহ বাংলা উচ্চারণ, অর্থ এবং দুরুদে নারিয়া ফজিলত সম্পর্কে জানা যাক। পাশাপাশি আর্টিকেলের শেষ দিকে বিস্তরভাবে আলোচনা করা হয়েছে দুরুদে নারিয়া পড়ার সঠিক নিয়ম সম্পর্কে এবং সর্বপরি দুরুদে নারিয়া নিয়ে প্রচলিত বেশ কয়েকটি প্রশ্ন ও তাঁর উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। আলোচনা বিলম্ব না করে চলুন দুরুদে নারিয়ার আনুসাঙ্গিক খুঁটি-নাটি সকল তথ্য নিয়ে আলোচনা করা যাক। ( দোয়া কুনুত এবং খতমে আম্বিয়া পড়ার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন )

দুরুদে নারিয়া – durude nariya

দুরুদে নারিয়া - durude nariya
দুরুদে নারিয়া – durude nariya

যেহেতু দুরুদে নারিয়া হলো একটি তাৎপর্যপূর্ণ আমল, তাই অবশ্যই সঠিকভাবে উচ্চারণ সহ অর্থসহ উক্ত আমল করার বিকল্প কিছুই নেই। যাইহোক, চলুন দুরুদে নারিয়া টি পড়ে নিই-

দুরুদে নারিয়া আরবি

যেহেতু দুরুদে নারিয়ার মূল উৎপত্তিই হলো আরবি ভাষা থেকে, তাই প্রথমে আমরা আরবি ভাষায় উক্ত দুরুদ শরীফটি পড়বো। আর সেটি হলো-

اَللّٰهُمَّ صَلِّ صَلٰوةً كَامِلَةً وَسَلِّمْ سَلَامًا تَامًّا عَليٰ سَيِّدِنَا مُحَمَّدِنِ الَّذِيْ تَنْحَلُّ بِهِ الْعُقَدُ وَتَنْفَرِجُ بِهِ الْكُرَبُ وَتُقْضىٰ بِهِ الْحَوَائِجُ وَتُنَالُ بِهِ الرَّغَائِبُ وَحُسْنُ الْخَوَاتِمِ وَيُسْتَسْقَي الْغَمَامُ بِوَجْهِهٖ الْكَرِيْمِ وَعَليٰ اٰلِهٖ وَصَحْبِهٖ فِي كُلِّ لَمْحَةٍ وَّنَفَسٍ بِعَدَدِ كُلِّ مَعْلُوْمٍ لَكَ-

দুরুদে নারিয়া বাংলা উচ্চারণ

আরবি ভাষা যেহেতু আমাদের মাঝে প্রায় সবাই জানি না, তাই আমাদেরকে প্রথমে আরবি ভাষার বাংলা উচ্চারণ শিখতে হবে। অর্থাৎ এখন আমরা দুরুদে নারিয়া বাংলা উচ্চারণ সম্পর্কে পড়বো। আর সেটি হলো-

আল্লাহুম্মা ছাল্লি ছালাতান কামিলাতান ওয়া সাল্লিম সালামান তাম্মান আ’লা সাইয়্যিদিনা মুহাম্মাদিনিল্লাযী তানহাল্লু বিহীল উক্বাদু ওয়া তানফারিজু বিহীল কুরাবু ওয়া তুক্বদ-বিহীল হাওয়ায়িজু ওয়া তুনালু বিহীর রাগাইবু ওয়া হুসনুল খওয়াতিমু ওয়া ইউস্ তাস্কাল গামামু বিওয়াজ হিহিল কারীম। ওয়া আ’লা আলিহী ওয়া ছাহবিহী ফী কুল্লি লামহাতিন ওয়া নাফাসিম বিআদাদি কুল্লি মা’লুমল্লাক্।

দুরুদে নারিয়া বাংলা অর্থ

একটি আরবি শব্দ তথা বাক্যের সহ অর্থ জানা সবারই কর্তব্য। এই ক্ষেত্রে নামাজে পড়া সূরা গুলোরও অর্থ জানা জরুরি। সে প্রেক্ষিতে এখন আমরা জানার চেষ্টা করবো দুরুদে নারিয়া বাংলা অর্থ সম্পর্কে। আর সেটি হলো-

হে আল্লাহ আমাদের সরদার হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর উপর পরিপূর্ণ দুরূদ ও সালাম পৌছান, যার [মুহাম্মদ (সাঃ)-এর কারণে সমস্ত কঠিন বিপদ-আপদ থেকে উদ্ধার পাওয়া যায় এবং সব ধরণের বালা-মুছীবত দূর হয় এবং যার কারণে সকল প্রকারের হাযত পূরণ হয়। তাঁর কারণেই সমস্ত আশা আকাংখা বাস্তবায়িত হয় এবং তাঁর কারণেই ইমান অবস্থায় মানুষের মৃত্যু হয়। তাঁর সম্মানিত জাতের ওছীলায় বৃষ্টিপাত হয় এবং তাঁর পরিবারবর্গ ও সাহাবীদের উপর প্রতি মুহুর্তে ঐ পরিমাণ দুরূদ ও সালাম পাঠান যে পরিমাণ আপনার জ্ঞানে আছে।

মূলত এটিই হলো দরুদে নারিয়া। আর ইতিমধ্যে আমরা এটির আরবি সহ বাংলা উচ্চারণ এবং একইসাথে বাংলা অর্থ সম্পর্কেও জেনেছি। পাশাপাশি এখন জানার চেষ্টা করবো দুরুদে নারিয়ার ফজিলত সমূহ সম্পর্কে। যেহেতু উক্ত দুরুদটির শুধু মাত্র একটি ফজিলত নয় বরং অসংখ্য ফজিলত দ্ধারা এটি আবদ্ধ, তাই চলুন ধীরে ধীরে এর ফজিলত সম্পর্কে স্পষ্ট একটি ধারণা নেওয়া যাক।

দুরুদে নারিয়া ফজিলত

মানুষগণ বিশেষ করে দুরুদে নারিয়া ফজিলত পাওয়ার উদ্দেশ্যেই এটিকে আমল করে থাকে। আর তাই সবারই উচিত, যেকোনো একটি আমল করার পূর্বে অবশ্যই সেই আমল সম্পর্কে ভালোভাবে যাচাই-বাচাই করা। যেমন আজকের দুরুদ শরীফটিরও রয়েছে অনেক ফজিলত। যাইহোক, বিলম্ব না করে চলুন ক্রমান্বয়ে এক এক করে এর ফজিলত সমূহগুলো পড়া যাক। দুরুদে নারিয়া ফজিলত গুলো হলো-

  • কোনো একজন বান্দা যদি বৃহস্পতিবার রাত্রে এক একা বসে নির্জন স্থানে তাহাজ্জুত নামাজের শেষে বসে ২৭বার মহান আল্লাহর নিকট দোয়া প্রার্থনা করে, তাহলে মহান আল্লাহ তা’আলা তাঁর দোয়া কবুল করে নেয়। একই সাথে সেই বান্দার মনের বাসনা পূর্ণ করে।
  • যদি কেউ কোনো রকম মারাত্মক অর্থাৎ মরণব্যাধি রোগে আক্রান্ত হয় আর বিজ্ঞ ও পরহেজগার কয়েকজন আলেমকে নিয়ে উক্ত দোয়াটি ৪৪৪৪ বার এক সাথে বসে পড়ে, তাহলে ইনশাল্লাহ মহান আল্লাহ তা’আলা তাঁর মনের দোয়া কবুল করে তাঁকে সুস্থ্য করে দিবে।
  • মনের সকল ইচ্ছা পূরণ করে দিতে উক্ত দোয়া বেশ কার্যকারী।
  • যদি কেউ আসর ও ফজরের নামাজের পর মোট ১১ বার উক্ত দোয়া পড়ে, তাহলে সে ব্যক্তির সকল মনের আশা আল্লাহ তা’আলা পূরণ করে দেয়।

মূলত এগুলো ছাড়াও আরো অসংখ্য ফজিলত রয়েছে দুরুদে নারিয়ার। তবে আশা করি যেসকল লোকজন দুরুদে নারিয়া ফজিলত নিয়ে বেশ অনেক সময় গুগল সার্চ করে থাকে, তাদের জন্য উপরোক্ত বিষয়গুলো বেশ কার্যকর হবে। এবং আমল করার পূর্বে এগুলো জানতে পেরে বাস্তবিক জীবনে চমৎকারভাবে উপকৃত হতে পারবে।

দুরুদে নারিয়া পড়ার নিয়ম

অনেকে দুরুদে নারিয়াকে দরুদে নারিয়া খতম ও বলে থাকে। তবে যে যাই বলুন না কেন, দিন শেষে একই আমল। যাইহোক, এতোক্ষণ আমরা দুরুদে নারিয়া সম্পর্কে মোটামোটি বিস্তারিত জেনেছি। চলুন এবার সর্বশেষ কিভাবে সঠিক উপায়ে দুরুদে নারিয়া পড়তে হয়, সেই সম্পর্কে জানি।

  • উক্ত আমল আপনি ফজর ও আসরের নামাজের পর পড়তে পারেন।
  • বিজ্ঞ কয়েকজন আলেমকে নিয়েও উক্ত আমল করতে পারেন।
  • কারো মরণব্যাধি অসুখ হতে মুক্তি লাভের জন্যও পড়তে পারেন।
  • এভাবে অসংখ্য কাজের জন্য আপনারা দুরুদে নারিয়া পড়তে পারেন।

মূলত উপরোক্ত পদ্ধতি বা উপায়গুলোকে মান্য করার মাধ্যমে দুরুদে নারিয়া পড়তে পারেন। যাইহোক, আশা করি এখন আপনারা সবাই সঠিক উপায়ে দুরুদে নারিয়া পড়তে পারবেন।

দুরুদে নারিয়া নিয়ে শেষ কথা

দুরুদে নারিয়া নিয়ে শেষ কথা
দুরুদে নারিয়া নিয়ে শেষ কথা

উপরে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করেছি দুরুদে নারিয়া নিয়ে। তবে আমরা যারা যারা দুরুদে নারিয়া pdf নিয়ে ইন্টারনেটে সার্চ করে থাকি, তাদের জন্য দুঃখিত। কেননা আজকের আর্টিকেলে আমরা কোনো রকম পিডিএফ ফাইল সংযুক্ত করি নি।

প্রথমে আমরা দুরুদে নারিয়া সম্পর্কে জেনেছি এবং এরপর সঠিক উচ্চারণ সহ সঠিকভাবে এর বাংলা অর্থ ও পাঠ করার সঠিক উপায়। যেহেতু ইন্টারনেটে হিউজ একটি বড় কমিউনিটি উক্ত দুরুদ শরীফ পড়ার জন্য অথবা বিস্তারিত জানার জ্ঞাতে অনেক সার্চ করে থাকে, তাই এখানে সেই নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। সর্বপরি, আশা করি আজকের আর্টিকেল তথা দুরুদে নারিয়া সম্পর্কে প্রথম হতে লাস্ট অবধি জানতে পেরে বেশ চমৎকারভাবে উপকৃত হতে পারবেন।

দুরুদে নারিয়া – durude nariya নিয়ে প্রশ্ন-উত্তর

মূলত প্রত্যেক মুসলিমের উচিত, যখনই কোনো একটি আমল তাঁর নিকট নতুন মনে হবে কিংবা পূর্বে এর ধারণা ছিল না এমন মনে হয়, তাহলে অবশ্যই তাঁর উচিত উক্ত আমল নিয়ে একজন অভিজ্ঞ আলেমের নিকট প্রশ্ন করা। ঠিক একই ভাবে দুরুদে নারিয়া নিয়েও মানুষগণের নিকট অনেক ধরনের প্রশ্ন তৈরি হয়। যার প্রেক্ষিতে এখানে তুলে ধরা হলো ইন্টারনেটে ভাসমান সবচেয়ে বেশি প্রচলিত ২টি প্রশ্ন। যেগুলো মূলত দুরুদে নারিয়া সম্পর্কিত। চলুন সে প্রশ্নগুলোর উত্তর জানা যাক।

দুরুদে নারিয়া পড়া কি জায়েজ?

যদিও দুরুদে নারিয়া সম্পর্কে হাদিসের কোথাও উল্লেখ নেই। তবে বিজ্ঞ আলেমগণের মত হলো- “যেহেতু এটির অর্থ মন্দও নয়। বরং চাইলে এ দুরুদকে পড়া যাবে। এই দুরুদের অর্থ খুবই সুন্দর। “

দুরুদে নারিয়া কতবার পড়তে হয়?

মূলত ১১ জন আলেম কে নিয়ে উপরে উল্লেখিত দুরুদটি (দুরুদে নারিয়া) পবিত্র অবস্থায় সর্বমোট ৪৪৪৪ বার পাঠ করতে হবে। তাহলেই এটির পূর্ণ ফজিলত দ্ধারা উপকৃত হওয়া যায়।

দুরুদে নারিয়া সম্পর্কে আরো জানতে

BanglaTeach
E-HaqDigital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking, Religious and so on.

Leave a Comment