আল্লাহর উপদেশ – পবিত্র কোরআন থেকে ১০০+ আল্লাহর উপদেশ

BanglaTeach
E-Haq
Digital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking,...

Sharing is caring!

আল্লাহর উপদেশ
আল্লাহর উপদেশ

মহান আল্লাহর উপদেশ পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তা’আলা মহানবী হযরত মোহাম্মদ সা: এর মাধ্যমে তুলে ধরেছেন। পবিত্র কোরআন হলো মানবজাতীর জন্য সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বশেষ উপদেশ, জীবন চালনার বই, যা সর্বশেষ নবী হযরত মোহাম্মদ সা: এর উপর নাযিল হয়েছে। মূলত কোরআন কারীমে যে সকল আয়াতগুলো রয়েছে, এর সবগুলোই হলো মহান আল্লাহ তা’আলার পক্ষ হতে আমাদের জন্য জীবন বিধান। যা দ্ধারা একজন মুমিন তাঁর দৈনন্দিন জীবনে উপকৃত হতে পারে । আবার অমান্য করার  মাধ্যমে দুনিয়া এবং আখিরাত উভয় স্থানে লজ্জ্বিত সহ জাহান্নামে যেতে পারে। ( জিহাদ নিয়ে উক্তি সহ আধুনিক মিষ্টি মেয়ের নামের তালিকা এবং ইসলামিক উক্তি সম্পর্কে জানুন )

তাই সময় ও বেঁচে থাকতে আমাদেরকে অবশ্যই পবিত্র কোরআন কারীমের সকল আদেশ তথা আল্লাহর উপদেশ সমূহ মান্য করে জীবন গঠন করতে হবে। অন্যথায় পরোকালে ভয়ঙ্কর শাস্তির মুখামুখী হতে হবে ।

যাইহোক, যেহেতু কোরআনের সকল আয়াতগুলোই হলো আল্লাহ প্রদত্ত। তাই উক্ত আয়াত তথা আল্লাহর উপদেশ সমূহ মান্য করে আমাদের জীবন চালনা করতে হবে । তবে যাইহোক, যেহেতু আজকের আর্টিকেলেটি মূলত আল্লাহর উপদেশ নিয়ে, তাই নিম্নে আমরা ১০০+ পবিত্র কোরআন থেকে আল্লাহর উপদেশ তুলে ধরার চেষ্টা করবো। আলোচনা বিলম্ব  না করে চলুন জেনে নেওয়া যাক আল্লাহর উপদেশ সমূহগুলো। ( বাবাকে নিয়ে উক্তি ও স্বপ্ন নিয়ে উক্তি সম্পর্কে জানুন )

আল্লাহর উপদেশ সমূহ

আল্লাহর উপদেশ সমূহ
আল্লাহর উপদেশ সমূহ

পবিত্র কোরআনের তথা আল্লাহর উপদেশ সমূহ জানার পূর্বে সবারই উচিত পবিত্র কোরআন সম্পর্কে বিস্তারিত জানা। যাইহোক, এই বিষয়ে আপনারা ইন্টারনেট তথা গুগল করলেই অনেক তথ্য জেনে যাবেন। যাইহোক, যেহেতু আজেকর আর্টিকেলেটি মূলত আল্লাহর উপদেশ নিয়ে, তাই নিম্নে আমরা তেমন ১০০+ আল্লাহর উপদেশে তুলে ধরেছি। আশা করি উল্লেখিত আয়াতগুলো জেনে চমৎকারভাবে উপকৃত হওয়ার পাশাপাশি আল্লাহর মেসেজগুলো সম্পর্কেও জানতে পারবেন। আল্লাহর উপদেশগুলো হলো-

১। তোমরা সত্যকে মিথ্যার সাথে মিশিয়ে দিও না। [সূরা বাকারা ২:৪২]
২। সৎকার্য নিজে সম্পাদন করার পর অন্যদের করতে বলো। [সূরা বাকারা ২:৪৪]
৩। পৃথিবীতে বিবাদ-বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করো না। [সূরা বাকারা ২:৬০]
৪। কারো মসজিদ যাওয়ার পথে বাধা সৃষ্টি করো না। [সূরা বাকারা ২:১১৪]
৫। কারো অন্ধানুসরণ করো না। [সূরা বাকারা ২:১৭০]
৬। প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করো না। [সূরা বাকারা ২:১৭৭]
৭। ঘুসে লিপ্ত হয়ো না। [সূরা বাকারা ২:১৮৮]
৮। যারা তোমাদের সঙ্গে লড়াই করবে, শুধু তাদের সঙ্গে তোমরা লড়াই করো। [সূরা বাকারা ২:১৯০]
৯। লড়াইয়ের বিধি মেনে চলো। [সূরা বাকারা ২:১৯১]
১০। অনাথদের রক্ষণাবেক্ষণ করো। [সূরা বাকারা ২:২২০]
১১। রজঃস্রাব কালে যৌনসঙ্গম করো না। [সূরা বাকারা ২:২২২]
১২। শিশুকে পূর্ণ দুই বছর দুগ্ধপান করাও। [সূরা বাকারা ২:২৩৩]
১৩। সৎগুণ দেখে শাসক নির্বাচন করো। [সূরা বাকারা ২:২৪৭]
১৪। দ্বিনের ব্যাপারে কোনো জবরদস্তি নেই। [সূরা বাকারা ২:২৫৬]
১৫। প্রতিদান কামনা করে দাতব্য বিনষ্ট করো না। [সূরা বাকারা ২:২৬৪]
১৬। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা করো। [সূরা বাকারা ২:২৭৩]
১৭। সুদ ভক্ষণ করো না। [সূরা বাকারা ২:২৭৫]
১৮। যদি ঋণীঅভাবগ্রস্তহয়তবে তাকে সচ্ছলতা আসা পর্যন্ত সময় দাও। [সূরা বাকারা ২:২৮০]
১৯। ঋণের বিষয় লিখে রাখো। [সূরা বাকারা ২:২৮২]
২০। আমানত রক্ষা করো। [সূরা বাকারা ২:২৮৩]
২১। গোপন তত্ত্ব অনুসন্ধান করো না এবং পরনিন্দা করো না। [সূরা বাকারা ২:২৮৩]
২২। সমস্ত নবির প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করো। [সূরা বাকারা ২:২৮৫]
২৩। সাধ্যের বাইরে কারো উপর বোঝা চাপিয়ে দিও না। [সূরা বাকারা ২:২৮৬]
২৪। তোমরা পরস্পর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ো না। [সূরা আল-ইমরান ৩:১০৩]
২৫। ক্রোধ সংবরণ করো। [সূরা আল-ইমরান ৩:১৩৪]
২৬। রূঢ় ভাষা ব্যবহার করো না। [সূরা আল-ইমরান ৩:১৫৯]
২৭। এই বিশ্বের বিস্ময় ও সৃষ্টি নিয়ে গভীর চিন্তাভাবনা করো। [সূরা আল-ইমরান ৩:১৯১]
২৮। পুরুষ ও নারী উভয়ই তাদের কৃতকর্মের সমান প্রতিদান পাবে। [সূরা আল-ইমরান ৩:১৯৫]
২৯। মৃতের সম্পদ তার পরিবারের সদস্যসের মাঝে বন্টন করতে হবে। [সূরা নিসা ৪:৭]
৩০। উত্তরাধিকারের অধিকার নারীদেরও আছে। [সূরা নিসা ৪:৭]
৩১। অনাথদের সম্পদ আত্মসাৎ করো না। [সূরা নিসা ৪১০]
৩২। যাদের সাথে রক্তের সম্পর্ক তাদের বিবাহ করো না। [সূরা নিসা ৪:২৩]
৩৩। অন্যায়ভাবে কারো সম্পদ ভক্ষণ করো না। [সূরা নিসা ৪:২৯]
৩৪। পরিবারের উপর কর্তৃত্ব চালাবে পুরুষ। [সূরা নিসা ৪:৩৪]
৩৫। অন্যদের জন্য সদাচারী হও। [সূরা নিসা ৪:৩৬]
৩৬। কার্পণ্য করো না। [সূরা নিসা ৪:৩৭]
৩৭। বিদ্বেষী হয়ো না। [সূরা নিসা ৪:৫৪]
৩৮। মানুষের সাথে ন্যায়বিচার করো। [সূরা নিসা ৪:৫৮]
৩৯। একে অপরকে হত্যা করো না। [সূরা নিসা ৪:৯২]
৪০। বিশ্বাসঘাতকদের পক্ষ নিয়ে বিতর্ক করো না। [সূরা নিসা ৪:১০৫]    

কোরআনের ১০০ উপদেশ

সার্চকৃত পাঠকদের মধ্যে প্রায় সময় দেখা যায় যে, তাঁরা কোরআনের ১০০ উপদেশ লিখেও সার্চ করে থাকে। আর যেহেতু আজকের আমাদের এই আর্টিকেলটি মূলত আল্লাহর উপদেশে নিয়েই, তাই তাদের সার্চকৃত টার্ম অর্থাৎ কোরআনের ১০০ উপদেশ উল্লেখ করে দিলাম। এতে করে সেই সব পাঠকদের উপকৃত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

৪১। ন্যায়ের উপর প্রতিষ্ঠিত থেকো। [সূরা নিসা ৪:১৩৫]
৪২। সৎকার্যে পরস্পরকে সহযোগিতা করো। [সূরা মায়িদা ৫:২]
৪৩। সীমালঙ্ঘনের ব্যাপারে একে অন্যের সহায়তা করো না। [সূরা মায়িদা ৫:২]
৪৪। মৃত পশু, রক্ত ও শূয়োরের মাংসা নিষিদ্ধ। [সূরা মায়িদা ৫:৩]
৪৫। সৎপরায়ণ হও। [সূরা মায়িদা ৫:৮]
৪৬। অপরাধীকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাও। [সূরা মায়িদা ৫:৩৮]
৪৭। পাপ ও অবৈধ জিনিসের বিরুদ্ধে শ্রম ব্যয় করো। [সূরা মায়িদা ৫:৬৩]
৪৮। মাদক দ্রব্য ও আলকোহল বর্জন করো। [সূরা মায়িদা ৫:৯০]
৪৯। জুয়া খেলো না। [সূরা মায়িদা ৫:৯০]
৫০। ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের উপাস্যদের গালমন্দ করো না। [সূরা মায়িদা ৫:১০৮]
৫১। আধিক্য সত্যের মানদণ্ড নয়। [সূরা আন’আম ৬:১১৬]
৫২। মানুষকে প্রতারণা দেওয়ার জন্য ওজনে কম দিও না। [সূরা আন’আম ৬:১৫২]
৫৩। অহংকার করো না। [সূরা আ’রাফ ৭:১৩]
৫৪। পানাহার করো, কিন্তু অপচয় করো না। [সূরা আ’রাফ ৭:৩১]
৫৫। সালাতে উত্তম পোশাক পরিধান করো। [সূরা আ’রাফ ৭:৩১]
৫৬। অন্যদের ত্রুটিবিচ্যুতি ক্ষমা করো। [সূরা আ’রাফ ৭:১৯৯]
৫৭। যুদ্ধে পশ্চাদ্‌মুখী হয়ো না। [সূরা আনফাল ৮:১৫]
৫৮। যারা নিরাপত্তা কামনা করছে তাদের সহযোগিতা করো ও নিরাপত্তা দাও। [সূরা তওবা ৯:৬]
৫৯। পবিত্র থেকো। [সূরা তওবা ৯:১০৮]
৬০। আল্লাহ্‌ তাআলার অনুগ্রহ হতে নিরাশ হয়ো না। [সূরা ইউসুফ ১২:৮৭]
৬১। যারা অজ্ঞতাবশত ভুলত্রুটি করে আল্লাহ্‌ তাআলা তাদেরকে ক্ষমা করবেন। [সূরা নাহ্‌ল ১৬:১১৯]
৬২। প্রজ্ঞা ও উত্তম নির্দেশনা দ্বারা আল্লাহ্‌ তাআলার প্রতি আহ্বাব করা উচিত। [সূরা নাহ্‌ল ১৬:১১৯]
৬৩। কেউ কারো পাপের বোঝা বহন করবে না। [সূরা ইসরা ১৭:১৫]
৬৪। পিতামাতার সাথে সদ্ব্যবহার করো। [সূরা ইসরা ১৭:২৩]
৬৫। পিতামাতাকে অশ্রদ্ধা করে কোনো কথা বলো না। [সূরা ইসরা ১৭:২৩]
৬৬। অর্থ অপচয় করো না। [সূরা ইসরা ১৭:২৯]
৬৭। দারিদ্রের আশঙ্কায় সন্তানসন্ততিকে হত্যা করো না। [সূরা ইসরা ১৭:৩১]
৬৮। অবৈধ যৌনাচারে লিপ্ত হয়ো না। [সূরা ইসরা ১৭:৩২]
৬৯। যে বিষয়ে জ্ঞান নেই তার অনুবর্তী হয়ো না। [সূরা ইসরা ১৭:৩৬]

আল্লাহর কিছু কথা

একইভাবে আল্লাহর কিছু কথা টার্মটি পাঠকদের মধ্যে বেশ অনেক ব্যবহার দেখা যায়। আর এই একই কারণে এখানেও সেইম টার্ম অর্থাৎ আল্লাহর কিছু কথা টার্মটি ব্যবহার করছি। আশা করি যেসব পাঠকগণ আল্লাহর কিছু কথা সম্পর্কে জানতে চায়, তাঁরা উল্লেখিত আল্লাহর উপদেশ সমূহ দ্ধারা খুব সহজেই উপকৃত হতে পারবে।

৭০। শান্তভাবে কথা বলো। [সূরা ত্বা-হা ২০:৪৪]    
৭১। অনর্থ জিনিস থেকে দূরে থেকো। [সূরা মু’মিনুন ২৩:৩]
৭২। অনুমতি ছাড়া কারো গৃহে প্রবেশ করো না। [সূরা নূর ২৪:২৭]
৭৩। যারা শুধু আল্লাহ্‌ তাআলার প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করেন তিনি তাদেরকে নিরাপত্তা দেন। [সূরা নূর ২৪:৫৫]
৭৪। বিনা অনুমতিতে পিতামাতার ব্যক্তিগত ঘরে প্রবেশ করো না। [সূরা নূর ২৪:৫৮]
৭৫। বিনয় সহকারে ভূপৃষ্ঠে বিচরণ করো। [সূরা ফুরকান ২৫:৬৩
৭৬। এই পৃথিবীতে তুমি তোমার অংশকে উপেক্ষা করো না। [সূরা কাসাস ২৮:৭৭]
৭৭। আল্লাহ্‌র সাথে অন্য কোনো বাতিল উপাস্যকে ডেকো না। [সূরা কাসাস ২৮:৮৮]
৭৮। সমকামিতায় লিপ্ত হয়ো না। [সূরা আন্‌কাবুত ২৯:২৯]
৭৯। সৎকার্যের আদেশ করো এবং অসৎকার্য হতে নিষেধ করো। [সূরা লোকমান ৩১:১৭]
৮০। দম্ভভরে ভুপৃষ্ঠে বিচরণ করো না। [সূরা লোকমান ৩১:১৮]   
৮১। কণ্ঠস্বর অবনমিত রেখো। [সূরা লোকমান ৩১:১৯]
৮২। নারীরা যেন তাদের সৌন্দর্য প্রদর্শন না করে। [সূরা আহ্‌যাব ৩৩:৩৩]
৮৩। আল্লাহ্‌ তাআলা যাবতীয় পাপ মোচন করে দিতে পারেন। [সূরা যুমার ৩৯:৫৩]
৮৪। আল্লাহ্‌ তাআলার অনুগ্রহ হতে নিরাশ হয়ো না। [সূরা যুমার ৩৯:৫৩]
৮৫। ভালো দ্বারা মন্দ প্রতিহত করো। [সূরা হা-মিম সাজদা ৪১:৩৪]

আল্লাহর বাণী ছবি

আল্লাহর বাণী ছবি নিয়েও মানুষগণ ইন্টারনেটে সার্চ দিয়ে থাকে। আর তারই প্রেক্ষিতে আজকের আর্টিকেলে আল্লাহর বাণী ছবির পরিবর্তে বেশ অনেকগুলো প্রায় ১০০+ আল্লাহর উপদেশে তুলে ধরেছি। আশা করি আল্লাহর বাণী ছবির চেয়ে আল্লাহর উপদেশ দ্ধারা ট্রাফিক আরো বেশি উপকৃত হবে।

৮৬। যেকোনো বিষয়ে পরামর্শের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নাও। [সূরা শূরা ৪২:৩৮]
৮৭। মানুষের সাথে মানিয়ে চলার চেষ্টা করো। [সূরা হুজরাত ৪৯:৯]
৮৮। কাউকে পরিহাস করো না। [সূরা হুজরাত ৪৯:১১]
৮৯। সন্দেহ থেকে বিরত থেকো। [সূরা হুজরাত ৪৯:১২]
৯০। পরনিন্দা করো না। [সূরা হুজরাত ৪৯:১২]
৯১। সবচেয়ে আল্লাহ্‌ভীরু ব্যক্তি সবচেয়ে সম্মাননীয়। [সূরা হুজরাত ৪৯:১৩]
৯২। অতিথির সম্মান করো। [সূরা যারিয়াত ৫১:২৬]
৯৩। দাতব্যকার্যে অর্থ ব্যয় করো। [সূরা হাদিদ ৫৭:৭]
৯৪। দ্বিনের মধ্যে বৈরাগ্যের কোনো স্থান নেই। [সূরা হাদিদ ৫৭:২৭]
৯৫। জ্ঞানীজনকে আল্লাহ্‌ তাআলা সুউচ্চ মর্যাদায় উন্নীত করবেন। [সূরা মুজাদালাহ্‌ ৫৮:১১]
৯৬। অমুসলিমদের সাথে সদয় ও ন্যায় আচরণ করো। [সূরা মুমতাহিনাহ্‌ ৬০:৮]
৯৭। লোভ-লালসা থেকে সুরক্ষিত থেকো। [সূরা তাগাবুন ৬৪:১৬]
৯৮। আল্লাহ্‌ তাআলার নিকট ক্ষমাপ্রার্থনা করো। তিনি মহাক্ষমাশীল ও অসীম দয়ালু। [সূরা মুযযাম্মিল ৭৩:২০]
৯৯। ভিক্ষুককে ধমক দিও না। [সূরা যুহা ৯৩:১০]
১০০। অভাবগ্রস্তকে খাদ্যদানের প্রতি উৎসাহ প্রদান করো। [সূরা মা’ঊন ১০৭:৩]
১০১। যারা সৎপথে চলে আল্লাহ তাদের পথপ্রাপ্তি বৃদ্ধি করেন এবং স্থায়ী সৎকর্মসমূহ তোমার পালনকর্তার কাছে সওয়াবের দিক দিয়ে শ্রেষ্ঠ এবং প্রতিদান হিসেবেও শ্রেষ্ট। - সূরাঃ মারইয়ামম আয়াত- ৭৬

উপরোক্ত সমস্ত আয়াতগুলোই হলো পবিত্র কোরআনের। অর্থাৎ পবিত্র কোরআনের আয়াত মানিই হলো মহান আল্লাহর কথা। আর আল্লাহ তা’আলা আমাদেরকে সঠিকভাবে জীবন পরিচালনা করার জন্যই নবী করিম সা: এর মাধ্যমে কোরআন ও হাদিস দিয়েছেন। সর্বপরি, আশা করি আজকের আর্টিকেল তথা আল্লাহর উপদেশ সমূহ জানতে পেরে আপনারা পাঠকগণ ব্যাপকভাবে উপকৃত হতে পেরেছেন।

আল্লাহর উপদেশ নিয়ে শেষ কথা

আল্লাহর উপদেশ নিয়ে শেষ কথা

মূলত আজকের পোস্টটি ছিল মহান আল্লাহর উপদেশ নিয়ে, যে বিধায় সম্পূর্ণ আর্টিকেলে জুড়েই রয়েছে পবিত্র কোরআন থেকে নেওয়া আল্লাহর কিছু উপদেশ। যা দ্ধারা একজন মুসলিম অথবা মুমিন ব্যক্তি বেশ চমৎকারভাবে উপকৃত হতে পারে। ( মেয়ে ও ছেলেদের ইসলামিক নাম সম্পর্কে জানুন )

যাইহোক, একজন পাঠক তখনই উল্লেখিত উপদেশ সমূহ দ্ধারা হেদায়াত হতে পারবে, যখন সে সম্পূর্ণভাবে অর্থাৎ পরিপূর্ণভাবে মুসলিম হয়েছে এবং চেষ্টা করে সব সময় আল্লাহর তা’আলার মনোনিত ধর্ম ইসলামকে মান্য করার। অতএব সর্বপরি বলা চলে যে, একজন পাঠক আল্লাহর উপদেশ সমূহ দ্ধারা পড়ে এবং তা মান্য করে জীবনে উপকৃত হতে পারবে।

আল্লাহর উপদেশ নিয়ে প্রশ্ন-উত্তর

আল্লাহর উপদেশগুলো কি সূরা হতে নেওয়া?

জ্বি, এখানে উল্লেখিত সমস্ত আল্লাহর উপদেশ সমূহ পবিত্র কোরআনের সূরা গুলো হতে নেওয়া।

আল্লাহর উপদেশ মান্য করার মাধ্যমে হেদায়াত পাওয়া কি সম্ভব?

অবশ্যই। একজন পরিপূর্ণ ইমানদার খুব সহজেই আল্লাহর উপদেশ সমূহ মান্য করার মাধ্যমে তাঁর দৈনন্দিন জীবনে হেদায়াত পেতে পারে।

আল্লাহর উপদেশ সম্পর্কে আরো জানতে

BanglaTeach
E-HaqDigital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking, Religious and so on.

Leave a Comment