বরই পাতার উপকারিতা ও অপকারিতা

BanglaTeach
E-Haq
Digital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking,...

Sharing is caring!

বরই পাতার উপকারিতা ও অপকারিতা
বরই পাতার উপকারিতা ও অপকারিতা

পুষ্টিকর ফল হিসেবে আমরা সাবাই কম-বেশি বড়ই ফল খেয়ে থাকি। কিন্তু তারই পাশাপাশি বড়ই পাতার উপকারিতা সম্পর্কে আমাদের মধ্যে অনেকে জ্ঞাত নয়। আচ্ছা, এখন অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, সত্যিই কি বরই পাতাতে এমন কোনো গুণগুণ রয়েছে, যা দ্ধারা আমরা উপকৃত হতে পারি? এর উত্তর হলো ”হ্যাঁ”। অবশ্যই বড়ই পাতাতে রয়েছে বেশ অনেকগুলো শারীরিক উপকারিতা, যা সুস্থ্য থাকতে আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ব্যাপক উপকারি। আর তারই প্রেক্ষিতে আজকের আর্টিকেলে আমরা সিরিয়াল বাই বরই পাতার উপকারিতার পাশাপাশি বরই পাতার কিছু অপকারিতা সম্পর্কেও জানার চেষ্টা করবো। ( গরম পানি খাওয়ার ক্ষতিকর দিকগুলো সহ স্বাস্থ্য সম্পর্কিত আরো টিপস জানুন )

এখানে উল্লেখ্য যে, কোনো কোনো ক্ষেত্রে আমাদের মধ্যে অনেকে অঞ্চল ভেদে বরই পাতাকে কুল বলে থাকে। যাইহোক, আলোচনা বিলম্ব না করে চলুন মূল আলোচনায় প্রবেশ করা যাক।

বড়ই এর উপকারিতা অপকারিতা

সৃষ্টির প্রথম হতে সংখ্যালঘু ছাড়া সবকিছুর সুবিধা বা উপকারিতার পাশাপাশি বেশ কিছু অপকারিতাও থাকে। আর সেই ক্ষেত্রে বরই পাতাও তার বাহিরে নয়। অর্থাৎ বড়ুই পাতার যেমন বেশ অনেকগুলো সায়েন্টিফিক্যালি উপকারিতা রয়েছে, ঠিক একইভাবে পাশাপাশি কিছু অপকারিতাও রয়েছে।

আলোচনার সুবিধার্থে আমরা প্রথমে বড়ই বা কুল পাতার উপকারিতা সম্পর্কে জানবো, ঠিক এরপর আমরা যথাক্রমে জানার চেষ্টা করবো কুল বা বড়ই পাতার অপকারিতার ‍দিকগুলো। আর সবগুলো উপকারিতা অপকারিতা চেষ্টা করা হবে বৈজ্ঞানিক উপায়ে বর্ণনা করার। যাতে করে পাঠকদের নিকট কোনো ভাবে ভুল/রং মেসেজ না যায়। আশা করি আর্টিকেলটি আপনাদের উপকারে আসবে।

বড়ই বা কুল পাতার উপকারিতা

বড়ই বা কুল পাতার উপকারিতা

গ্রীষ্মকালীন ফল হিসেবে বড়ই ফলকে কম-বেশি আমাদের সবার সাথেই পরিচিত। আর আমাদের গ্রাম-অঞ্চলে প্রাচীন কাল হতেই বড়ই পাতার নানা মুখী ব্যবহার হয়ে আসছে। এবং এখন অবধি এর উপকার দ্ধারা মানুষগণ উপকৃত হচ্ছে। তাহলে এর উপকারিতাগুলো কি? চলুন সংক্ষিপ্তে লিস্ট আকারে জেনে নিই। বড়ই পাতার উপকারিতাগুলো হলো-

  • ওজন নিয়ন্ত্রণ করে
  • চর্মরোগ দূর করে
  • আলসার প্রতিরোধ করে
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে
  • চুল পড়া বন্ধ করে
  • ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে

সংক্ষিপ্তে বললে উপরোক্ত উপকারিতাগুলো একজন ব্যক্তি সঠিকভাবে বড়ই পাতা ব্যবহার করে উপকৃত হতে পারে। এখন চলুন, উপরোক্ত উপকারিতাগুলো বিস্তারিত জানার চেষ্টা করি।

ওজন নিয়ন্ত্রণ করে

আচ্ছা আমি যদি আপনাদের জিজ্ঞাসা করি যে, কোন খাদ্যগুলো আমাদের ওজন বাড়তে সহায়তা করে? বৈজ্ঞানিক ভাবে প্রমাণিত যে, সকল ধরনের ফ্যাট জাতীয় খাদ্যগুলো সাধারণত আমাদের মানবদেহের ওজন বৃদ্ধিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখে। বড়ই এবং তার পাতাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালরি। যা আমাদের শরীরে শক্তির যোগান দেয়। যেহেতু ফ্যাট প্রায় শূণ্য, তাই পরোক্ষভাবে বরই পাতা আমাদের দেহের ওজন বৃদ্ধিতে সহায়তা করে থাকে।

চর্মরোগ দূর করে

চর্মরোগ নিরাময়ে আদিকাল হতে আমাদের পূর্বপুরুষগণ বড়ই পাতা ব্যবহার করে আসছে। এবং বাস্তবে তা খুব কার্যকারী। সাধারণত আমাদের চামড়ার তৈরি হওয়া এলার্জি, বা অন্য যেকোনো ধরনের চর্মরোগ সারাতে আপনি বরই পাতার রস ব্যবহার করতে পারেন। সাধারণত যদি আপনি চর্ম এলার্জি নিরাময় করতে চান, তাহলে প্রথমে আপনি কতগুলো বরই পাতা এনে ভালোভাবে ধুঁয়ে নিন। এরপর সেই পাতাগুলোকে ভালোভাবে পেস্ট বা ব্লান্ডার করুন। এবার চা কাপের হাফ গ্লাস পরিমাণ রস নিন। এবং এই রসের সাথে এক চা চামচ কালো জিরার গুড়ো অ্যাড করুণ। এবার ভালোভাবে মিক্স করুন। প্রতিদিন রাতে এক টানা ৭ দিন বা আরো কিছু দিন এই রস খাওয়ার চেষ্টা করুণ। এতে করে আপনার চর্মে থাকা এলার্জি খুব সহজেই দূর হয়ে যাবে।

আলসার প্রতিরোধ করে

গ্যাস্ট্রিক হতে অনেকের পাকস্থলিলে আলসার তৈরি হয়ে থাকে। এমতোবস্থায় আপনি এর থেকে রেহাই পেতে পারেন বরই পাতা সেবনের মাধ্যমে। বড়ই পাতাতে অ্যান্টি উপাদান হিসেবে সোডিয়াম ও বালপোরেটরের মতো কার্যকারী ঔষধীগুণ সম্পন্ন রাসায়নিক উপাদান থাকে। এই ক্ষেত্রে কিভাবে বরই পাতা ব্যবহার করবো? এর জন্য প্রতিদিন আপনাকে কিছু পরিষ্কার বরই পাতা গাছ থেকে সংগ্রহ করে ভালোভাবে ধুয়ে চিবিয়ে খেতে হবে। এভাবে কয়েকদিন খেলে আলসার দুর হয়ে যাবে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে

সাধারণত বড়ুই সহ এর পাতাতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের শরীরের ফ্রি র‍্যাডিকেলগুলোকে নিষ্ক্রিয় করে দেয়। এগুলো ছাড়াও এর মধ্যে ভিটামিন সি, এ, বি২, ফাইটোকেমিক্যাল ইত্যাদি উপকারী ভিটামিন পাওয়া যায় । যেগুলো মূলত আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে ব্যাপক সহায়তা করে থাকে। তাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে আপনিও বড়ই পাতার ব্যবহার বাড়াতে পারেন।

চুল পড়া বন্ধ করে

চুল পড়া নিয়ে প্রায় আমাদের মধ্যে সবারই একটা টাইপের আতঙ্ক কাজ করে। চুল পড়া বন্ধ করতে আমরা অনেক কিছুই করে থাকি এবং প্রয়োজনে অনেকে চিকিৎসকের কাছেও যেয়ে থাকি। কিন্তু প্রাকৃতিক বড়ই পাতার মাধ্যমে উক্ত সমস্যা আমরা খুব সহজেই কাটিয়ে উঠতে পারি। যাইহোক, কিভাবে বড়ই পাতা ব্যবহার করবো? এর জন্য প্রথমে কয়েকটি বড়ই পাতা নিয়ে পরিষ্কার পানি দ্ধারা ধৌত করুণ। এরপর এর সাথে তুলসি পাতা ও আমলা মিশিয়ে নিন। এবার ভালোভাবে তা পেস্ট করুণ। এখন সময় এসেছে তা আপনার চুলে দেওয়ার। খুব সতর্ক থেকে ভালোভাবে চুলে লাগিয়ে নিন মিক্সটি। এরপর ১০-২০ মিনিট পর সেই পেস্ট পানির মধ্যে ভালোভাবে ধুয়ে নিন। এভাবে কয়েকদিন ব্যবহার করে চুল পড়া বন্ধ করতে পারেন খুব সহজেই।

ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে

আচ্ছা আমাদের ত্বক অনুজ্জ্বল হয় কেন? মূলত ত্বকে যখন পর্যাপ্ত পুষ্টি না থাকে, তখন ত্বক পুষ্টিহীনতায় ভুগে এবং ফলাফল সরূপ ত্বকের উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে যায়। এখন বড়ই পাতাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যামাইনো অ্যাসিড, বিটা-ক্যারোটিন, স্কোয়াট অ্যাসিড এবং ফাইটোকেমিক্যালস। উক্ত উপাদানগুলো আমাদের ত্বকের সকল ধরনের পুষ্টির ঘাটতি দূর করে। মাঝে মাঝে আমাদের ত্বকে কিছু কিছু স্পষ্ট বলিরেখা দেখা দেয়। এগুলোও চমৎকারভাবে দূর হয়ে যায়। এখন প্রশ্ন করতে পারেন যে, ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষার্থে কিভাবে বড়ুই পাতা ব্যবহার করবো?

এর জন্য প্রথমে আপনি কতগুলো পরিষ্কার বড়ই পাতা নিন। এরপর ভালোভাবে সেগুলো পেস্ট করে নিন। সাথে কিছু মধু যোগ করুন। এবার সেই পেস্টটি আপনার মুখ-মন্ডলে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। কয়েক মিনিট এভাবে মুখে রেখে পরোক্ষণে তা ভালোভাবে ধুয়ে নিন। অবশ্যই রাতে ঘুমানোর পূর্বে উক্ত কার্যখানা করবেন। এভাবে টানা ১০-১৫ দিন মান্য করার মাধ্যমে আপনার ত্বকে সৌন্দর্য ফিরেয়ে আনতে পারেন খুব সহজেই।

বরই পাতার ব্যবহার ও গুণ

বরই পাতার ব্যবহার ও গুণ

উপরে আমরা প্রায় ৬টি বরই পাতার উপকারিতা সম্পর্কে জেনেছি। যদিও এগুলো ছাড়াও আরো অনেকগুলো কার্যকারী উপকারিতা রয়েছে। আচ্ছা যাইহোক, এবার চলুন দৈনন্দিন জীবনে বরই পাতার কিছু বাস্তব ব্যবহার সম্পর্কে জেনে নিই। বরই পাতার ব্যবহার সমূহগুলো হলো-

মৃত ব্যক্তির গোসলে বরই পাতার ব্যবহার

আমরা উপরে জেনেছি যে, বরই পাতাতে রয়েছে কিছু বিশেষ অ্যান্টিসেফটিক উপাদান। যা পানিতে কিছুক্ষণ রেখে হালকা গরম করলে বরই পাতার সেই অ্যান্টিসেফটিক আঁঠালো রূপে বের হয়ে পানির সাথে মিশে যায়। আর সেই পানি তথা নির্যাস মানব শরীরকে জীবানুমুক্ত করতে ব্যাপক ভূমিকা রাখে। আর এই কারণেই মুসলিমরা মৃত ব্যক্তিকে গোসল করাতে বরই পাতা ব্যবহার করে থাকে।

গর্ভাবস্থায় বরই খাওয়ার উপকারিতা

সাধারণত গর্ভাবস্থায় বরই পাতার চেয়ে বরই খাওয়ার উপকারিতাই বেশি। বরই খাওয়ার মাধ্যমে একজন মা বেশ অনেকগুলো উপকারিতা পেতে পারে। সেগুলো মধ্যে কিছু হলো- কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়, শরীর শক্তি অর্জন করতে পারে, স্ট্রেস বা ক্লান্তি দূর হয়, অ্যানিমিয়ার সাথে লড়াই করতে সহায়তা করে সহ ইত্যাদি রকম উপকারিতা রয়েছে। তাবে এই ক্ষেত্রে একটি বিষয় স্পষ্ট যে, অবশ্যই অতিরিক্ত কোনো কিছুই করবেন না এবং যেহেতু বিষয়টি অত্যান্ত সেনসেটিভ, তাই অভিজ্ঞ ডাক্তারের সাথে পরামর্শ নিয়ে সব কিছু করবেন।

আলোচনা সংক্ষিপ্ত রাখার সুবিধার্থে এখানে বরই পাতার মাত্র ২টি ব্যবহার উল্লেখ করলাম। যদিও এগুলো ছাড়াও আরো অনেকগুলো বরই পাতার ব্যবহার হয়েছে। আশা করি অল্প পরিমাণ হলেও বরই পাতার ব্যবহার ও গুরুত্ব সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

বরই পাতার অপকারিতা

যদিও বরই পাতার অপকারিতা নেই বললেই চলে কিন্তু বরই এর বেশ কিছু উপকারিতার পাশাপাশি অপকারিতাও রয়েছে। আর সেগুলো হলো-

  • যাদের শ্বাস-কষ্ট রয়েছে, সেই সকল ব্যক্তিদের বরই খাওয়ার ফলে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যেতে পারে। তাই এই দিকটিকে অবশ্যই বরই খাওয়ার সময় প্রাধান্য দিতে হবে।
  • আবার যাদের ডায়াবেটিস রোগ রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রেও বরেই বেশ ক্ষতিকর। কারণ বরইতে থাকা চিনি ডায়াবেটিস রোগীদের ডায়াবেটিস বাড়িয়ে দিতে পারে। আর এই কারণেই ডায়াবেটিস রোগীদের উচিত সীমিত পরিমাণ বরই খাওয়া।

মূলত এইগুলোই হলো বরই তথা পাতার অপকারিতা। আর্টিকেলের এই অংশে বরই পাতার অপকারিতা সম্পর্কে মোটামোটি হলেও একটি সংক্ষিপ্ত ধারণা পেয়েছেন।

বড়ই পাতা নিয়ে শেষ কথা

এখন আমরা জানি যে, বরই পাতার উপকারিতা দ্ধারা আমরা বেশ ভালোভাবে উপকৃত হতে পারি। এবং বড়ই পাতার হাদিস এ এই নিয়ে অনেকগুলো আলোচনা রয়েছে। মৃত ব্যক্তিকে বরই পাতা দিয়ে গোসল সহ ইত্যাদি। তবে এখানে প্রদত্ত তথ্যগুলো অনেকে দেশি বরই এর উপকারিতা হিসেবে বিবেচনা করবে অথবা অনেকে ভুল বশত অর বরই এর উপকারিতা হিসেবে বিবেচনা করে থাকবে। তাই আপনারা পুনরায় আর্টিকেলটি পড়বেন। বিশেষ করে আজকের আর্টিকেলে বাংলাদেশে পাওয়া যেকোনো বরই গাচের পাতাকে ইন্ডিকেট করেই তৈরি।

তাই বরই পাতার গুণ বা উপকারিতা সম্পর্কে আরো বিস্তারিত মনোযোগ সহকারে পড়তে আপনারা মনোযোগ সহকারে পোস্টটি পড়তে পারেন। পাশাপাশি বরই পাতার উপকারিতা নিয়ে মনে থাকা যেকোনো জিজ্ঞাসা কমেন্টে করতে পারেন। আশা করি, খুব দ্রুত আমরা আপনাদের রিপ্লাই দিতে সক্ষম হবো। পরিশেষ বরই পাতা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরে আশা করি আপনারা চমৎকারভাবে উপকৃত হতে পারবেন।

বড়ই পাতা সম্পর্কে আরো জানতে

BanglaTeach
E-HaqDigital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking, Religious and so on.

Leave a Comment