ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার সহজ উপায়

BanglaTeach
E-Haq
Digital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking,...

Sharing is caring!

ডিজিটাল মার্কেটিং কি
ডিজিটাল মার্কেটিং কি

ডিজিটাল মার্কেটিং – Digital Marketing বলতে সাধারণত অধিকাংশ মানুষ কি বোঝে? যদি আপনি এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ছেন, তাহলে আপনি হয়তো ডিজিটাল মার্কেটিং কি বা কাকে বলে এবং কিভাবে শিখা যায় ও শেখার সবচেয়ে সহজ উপায় কি, তা জানতে চান, রাইট?

আর এই বিধায় সাধারণত আজকের আমাদের এই আর্টিকেলটি। এখানে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে সম্মুখ একটি ধারণা নেওয়ার চেষ্টা করবো, পাশাপাশি এর আনুসাঙ্গিক সকল জিনিস জানবো। প্রথমে ডিজিটাল মার্কেটিং এর সংজ্ঞা সম্পর্কে জানা যাক।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

ডিজিটাল মার্কেটিং হলো আধুনিক প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে, ইলেকট্রনিক মিডিয়া তথা মাধ্যম ( সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ওয়েবসাইট সহ ই-মেইল ইত্যাদি ) ব্যবহার করে, ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, পণ্য/প্রোডাক্ট, ব্র্যান্ড সহ ইত্যাদির প্রচারণা চালানোকে বোঝায়। সাধারণত সংক্ষেপে বললে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইনে আপনার যেকোনো ধরনের পণ্য, প্রতিষ্ঠান, ব্র্যান্ড, ব্যাক্তি বা সার্ভিসের বিজ্ঞাপন তথা প্রচারকেই বোঝায়।

এখন ডিজিটাল মার্কেটিং এর সংজ্ঞাকে ভিত্তি করে আরো কিছু প্রশ্ন আসতে পারে, আর সেগুলো হলো-

  • ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্র বা ধাপগুলো কি কি?
  • ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ কি?
  • ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা?
  • ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা ও অসুবিধা
  • ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায়?
  • ডিজিটাল মার্কেটিং টিউটোরিয়াল কোথায় পাওয়া যায়?
  • কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করে পণ্য, প্রতিষ্ঠান, ব্র্যান্ড, ব্যাক্তি বা সার্ভিসের বিজ্ঞাপন তথা প্রচার করা হয়?

মোটামোটি আপাতত যদি একজন নিওবির উপরোক্ত প্রশ্নগুলোর উত্তরগুলো জানা থাকে, তাহলে আশা করি প্রাথমিক অবস্থায় তাঁর ব্যাসিক একটি সম্পূর্ণ গাইডলাইন পাওয়া হয়ে যাবে। তাহলে চলুন, আলোচনা দীর্ঘ না করে, প্রশ্নগুলোর উত্তর জানা যাক।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্র বা ধাপগুলো কি কি?

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্র বা ধাপগুলো কি কি

সাধারণত উপরোক্ত তথ্যগুলোর উপর ভিত্তি করে একজন নিউবির মনে হতে পারে যে, ডিজিটাল মার্কেটিং বলতে কি শুধু মাত্র প্রচারের মাধ্যমে ব্র্যান্ড ভেল্যু বাড়ানো? আর এই সেক্টরে কি একটি মাত্রই প্লাটফর্ম? মূলত সংক্ষেপে বলতে গিয়ে উপরের সংজ্ঞাটা দেওয়া। আর ডিজিটাল মার্কেটিং এর জগতে এর অনেকগুলো সেক্টর বা প্লাটফর্ম রয়েছে, যেগুলোতে আপনি ইন্ডিভিজুয়ালি ডেডিকেটেড কাজ করতে পারেন এবং সেই একটি নির্দিষ্ট সেক্টরে ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারেন। তাহলে সেই সেক্টরগুলো কি কি? হ্যাঁ, চলুন জানা যাক-

  • এসইও – SEO বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন
  • এসইএম বা সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং ( Search Engine Marketing )
  • কন্টেন্ট মার্কেটিং ( Content Marketing )
  • সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বা এসএমএম ( Social Media Marketing or SMS )
  • এফিলিয়েট মার্কেটিং ( Affiliate Marketing )
  • ইমেইল মার্কেটিং ( E-mail Marketing )
  • ই-কমার্স প্রোডাক্ট মার্কেটিং ( E-commerce Product Marketing )
  • সিপিএ মার্কেটিং ( CPA Marketing )
  • ব্লগিং ( Blogging )

নতুন অবস্থায় সুস্থ্য একটি গাইডলাইনের জন্য একজন ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে যে কয়েকটি সেক্টরের নাম জানা দরকার বা প্রয়োজন হতে পারে, সেগুলোর নাম এখানে তুলে ধরা হয়েছে। আশা করি দৈনন্দিন কাজ করা এবং শিখার মাধ্যমে অন্য সকল সেক্টর বা ধাপগুলোর নাম জেনে যাবেন। তবে এখানে সবগুলোই কিন্তু একজন নতুনের জন্য জানা জরুরি নয়। জাস্ট চোখ বুলিয়ে রাখুন। এখন চলুন, অন্য প্রশ্নগুলোর উত্তর জানা যাক।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ কি?

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ কি

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ কি? এই প্রশ্নটি একদম কমন একটি, আর এটাই হওয়া স্বাভাবিক। কোনো ব্যক্তি যখন একটি অচেনা বিষয়কে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে নিবে,তখন অবশ্যই তাঁর কর্তব্য হলো সে বিষয় সম্পর্কে গভীরভাবে যাচাই-বাঁচাই করা এবং আরো রিসার্চ করা। যখনই সে সে টপিকে ভরসা পাবে এবং যৌক্তিক কারণ খুঁজে পাবে, তখনই সে সেটাকে গ্রহণ করার পাশাপাশি নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে গড়ে তুলবে।

এবার আসুন ফোকাসড প্রশ্ন যে, ডিজিটাল মার্কেটিং এর আসলে ভবিষ্যৎ কেমন, এই প্রশ্নের উত্তর ‍দিতে হলে আপনাকে বেশ কয়েকটি উদাহরণ টেনে বোঝাতে হবে এবং একই সাথে বর্তমান বিশ্বের দিকে তাকাতে হবে। তার আগে আপনাকে কয়েকটি প্রশ্ন করি, বর্তমানে কিসের উপর ভিত্তি করে বিশ্বের যেকোনো প্রান্তের মানুষ অল্প সময়ে যেকোনো কিছু করতে সক্ষম হচ্ছে? অবশ্যই উত্তর হলো আধুনিক প্রযুক্তি। বাংলাদেশে বর্তমানে ব্যাংকিং সিস্টেমের কন্ট্রোলও গ্রাহকদের হাতে চলে আসছে। যেমন মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম। এছাড়াও আপনি অবশ্যই একজন ফেজবুক ইউজার এবং সেখানে অনলাইনে পণ্য বিক্রি ও ক্রয়ের একটি নমুনা অবশ্যই দেখতে পান। তাহলে আপনার এই সমস্ত কিছু দেখে কি মনে হয়? ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ নড়বড়ে? অবশ্যই না।

বর্তমান বিশ্বের সকল ইন্ড্রাস্ট্রি হতে শুরু করে প্রতিষ্ঠানগুলো ডিজিটালাইজড হচ্ছে এবং মানুষগণও কেনা-কাটার ক্ষেত্রে স্ব-শরীরে মার্কেটে গিয়ে কোনো কিছুর ক্রয়ের চেয়ে বর্তমানে অনলাইনে ক্রয়ে ক্রিয়েটিভ বেশি। আর থাকবেই না কেন? অনলাইনে ক্রয়ে আপনি অন্য মানুষদের উক্ত পণ্যের ভালো বা তিক্ত উভয় অভিজ্ঞতা জানতে পারবেন এবং দাম জিজ্ঞাসা বা বার্গেইনিং এর কোনো ঝামেলা নেই। মার্কেটে যেতে হয় না ইত্যাদি। আর এসব ফিচার, দিন দিন ডিজিটাল মার্কেটিং কে আরো শক্তিশালী করে তুলছে। আর জেনে অবাক হবেন যে, বর্তমানে বাংলাদেশের শহরে অধিকাংশ শপ অনলাইন নির্ভর। আর এগুলো সবই ডিজিটাল মার্কেটিং নির্ভর। আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করে টার্গেটেড ভোক্তার নিকট পৌঁছে দিবেন, এবং তাঁরা সেটা যাচাই করে অর্ডার করবে। আর দিন দিন এটার ব্যবহার খুব দ্রুত বাড়ছে। খাদ্য হতে শুরু করে দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় সকল কিছুই টার্গেটিড পিপলের নিকট অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে। তাহলে আপনি কি বোঝছেন? আগামী ভবিষ্যৎ এ আপনি টিকে থাকতে পারবেন তো?

এসব অনলাইন ভিত্তিক বাজার বা কেনা-কাটা, সকল কিছুই হলো ডিজিটাল মার্কেটিং। আপনার ভবিষ্যৎ এ একটি সফল ব্যবসা নির্ভর করছে সঠিকভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপর। এখন আপনাকে তৈরি করতে হবে ভবিষ্যৎ এর জন্য এবং খাপ খাইয়ে নিতে হবে সকল প্রযুক্তি ও ব্যবসার ধরনের সাথে। উত্তম হলো এখন থেকেই ডিজিটাল মার্কেটিং এর সাথে নিজেকে সংযুক্ত করে নিজের ব্যবসাকে প্রচার করে প্রসার করুণ এবং উপকৃত হোন। আশা করি ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে বেশ ভালো একটি ধারণা পেয়েছেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা

ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা

ক্রমান্বয়ে জীবনের একটি অপরিহার্য অংশ হয়ে যাচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং। মানুষ এখন দোকানে বা উন্নত শপে না গিয়ে ঘরে বসেই ধনী-গরীব সবাই ক্রয় – বিক্রয় করতে সক্ষম হচ্ছে। বহির্বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশের জনগণও বর্তমানে নজরকারা অনলাইন শপিং করছে। এছাড়াও একজন ব্যবসায়ীর ক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং কেমন প্রয়োজনী একটি বিষয়, তা সম্পর্কে চলুন সংক্ষিপ্তে ধারণা নেওয়া যাক।

প্রথমে আপনি নিম্নে উল্লেখিত ছবিতে থাকা লিখাগুলো পড়ুন। এরপর ভাবুন বিশ্ব কোন দিকে মোড় নিচ্ছে।

বর্তমানে সমগ্র বিশ্বে মোট প্রায় ২ বিলিয়ন মানুষ প্রচলিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে। আর এই সংখ্যাটি ক্রমেই বেড়ে চলেছে। মানুষগন যত বেশি ইন্টারনেটে ব্যবহার করবে তত বেশি মানুষের সামনে আপনি আপনার পণ্যের মার্কেটিং সঠিকভাবে করতে পারবেন। আর এসব আলোচনা থেকেই আপনি বোঝতে পারবেন যে ইন্টারনেটে পণ্যের মার্কেটিং এ ডিজিটাল মার্কেটিং এর গুরুত্ব কতখানি !
আবার অন্যদিকে বর্তমান বিশ্বে মোট প্রায় ৫.১১ বিলিয়ন মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে। আর উল্লেখিত এই সংখ্যা খুবই দ্রুত গতির সাথে বেড়ে চলেছে। এখন আমাদের মধ্যে অনেক মানুষ আছে যারা একাধিক মোবাইল ব্যবহার করেন মূলত তাদের যোগাযোগ ব্যবস্থা ঠিক রাখার জন্যে কিংবা অন্য যেকোনো কারণে। আর আপনি জানলে অবাক হবেন যে, এই মোবাইল ফোনই হচ্ছে একজন ক্রেতার তথ্য কালেকশনের অন্যতম মাধ্যম। কারণ প্রায় সকল মোবাইল ব্যবহারকারিই ইন্টারনেটের সাথে প্রতিনিয়ত যুক্ত রয়েছে। এই ব্যবহারকারীর সংখ্যা যত বাড়বে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তাও ক্রমান্বয়ে ততো বাড়বে।
আপনি আরো জেনে অবাক হবে যে, একটা স্ট্যাটিসটিক্সের মাধ্যমে ইউজার বা ব্যবহারকারীর সার্ভে রিপোর্ট উল্লেখ করেছে যে, প্রায় ৮৪% - ৮৭% বিক্রেতা, মার্কেটার প্রতিনিয়ত ব্যবহার করা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে ব্যবহার করে থাকে ক্রেতার তথ্য সংগ্রহ করার জন্যে। এছাড়া অন্য আরেকটি  সার্ভে রেজাল্ট দেখিয়েছে যে, আমাদের সারা বিশ্বে প্রায় ৫৫% - ৬০% মানুষ যেকোন পন্য ক্রয়ের জন্যে সামাজিক মাধ্যমের ওপর নির্ভরশীল। এর মানে হচ্ছে, তারা সোশ্যাল মিডিয়া থেকে তাদের পছন্দের পণ্য সম্পর্কে তথ্য এবং রিভিউ জানতে পারে। আর ক্রেতা যার প্রেজেন্টেশন ও পণ্যকে বেশি পছন্দ করবে তার কাছ থেকে অনলাইনের মাধ্যমেই সে পণ্য কিংবা প্রোডাক্টটি ক্রয় করে ফেলে।
বিশ্বের প্রায় ৪৮% - ৬০% ই-কমার্স ক্রেতা গুগলে সার্চ করে তাদের পছন্দের যেকোনো ই-কমার্স ওয়েবসাইটে আসে। বিশ্বে প্রায় ৫১% ক্রেতা তাদের প্রয়োজনীয় কেনাকাটা অনলাইন থেকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই করে থাকে। আর জেনে অবাক হবেন যে, এই সংখ্যাটিও দিনকে দিন ক্রমেই বেড়েই চলেছে।
৭৫% - ৮০% ক্রেতা যেকোন পণ্য কেনার পূর্বে প্রথমে ইন্টার্নেটে সার্চ দিয়ে সেই পণ্য সম্পর্কে যাচাই বাছাই করেন। পণ্যটি  যদি পছন্দ হয়, তাহলে সাথে সাথেই ঘরে বসেই অনলাইনে অর্ডার করে ফেলেন।  অন্য আরো একটি মজার ব্যাপার হচ্ছে, ৮২% - ৯০% ক্রেতা মাত্র ৫ মিনিটের মধ্যেই বিক্রেতার সাথে তাদের লাইভ চ্যাটের মাধ্যমে কথা বলতে চান এবং কথা বলেও থাকেন। অর্থাৎ সব কিছুই এখন অনলাইন নির্ভর।

ইতিমধ্যে লিখাগুলো পড়ে অবশ্যই বোঝতে পারছেন যে, মানুষগণ কতটা অনলাইন নির্ভর হয়ে পড়ছে ধীরে ধীরে। আর সেই কারণেই দিন দিন ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা ক্রমে বাড়ছে। যেহেতু আমাদের সবার হাতেই এখন একটি স্মার্টফোন রয়েছে এবং তা দিয়ে আমরা ইন্টারনেট ইউজ করছি, সুতরাং ধরেই নেওয়া যায় যে, নিজের অজান্তেই আমরা বিভিন্ন মাধ্যমগুলোর একজন ক্রেতা বা টার্গেটেড কাস্টমার হয়ে যাচ্ছি। আর তারই ধারাবাহিকতায় তাঁরা করছে প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের বিভিন্ন রকম ক্যাম্পেইন। একটু যদি বড় বড় কোম্পানিগুলোর দিকে তাকান তাহলে আরো ব্যাপারটি স্পষ্ট হবে। যেমন- Female Shampoo, Coca Cola, Unilever, bKash, Nagad, Insurance সহ ইত্যাদি। আপনি একটু তীক্ষ্ণ নজর দিলে দেখবেন, অনলাইনে তাঁরা পুরো দমে তাদের ব্র্যান্ড ভেল্যু প্রচারের জন্য ক্যাম্পইন চালাচ্ছে এবং এবং এই ক্ষেত্রে সফলও হচ্ছে। তাহলে আশা করি উপরোক্ত সংক্ষিপ্ত আলোচনা থেকে বোঝতেই পেরেছেন যে, ভবিষ্যৎ প্রজন্মে টিকে  থাকতে হলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর গুরুত্ব বা প্রয়োজনীয়তা কেমন।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা ও অসুবিধা

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা ও অসুবিধা

ডিজিটাল মার্কেটিং ‍সংখ্যালঘু অুসবিধা থেকে সুবধার পরিমাণই বেশি। আর প্রসারিতভাবে চিন্তা করলেই সব কিছুরই কিছু না কিছু অসুবিধা থাকেই। তবে তা যদি আমরা সুবিধার দিক থেকে ভাবি, তাহলে অবশ্যেই ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা সবচেয়ে এগিয়ে। তাহলে কি সে সুবিধগুলো? চলুন তাহলে জানা যাক ডিজিটাল মার্কেটিং এর অসুবিধা ও সুবিধাগুলো সম্পর্কে জানা যাক।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা

  • খুব সহজে এবং তাড়াতাড়ি ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন।
  • গ্রাহকের সাথে সম্পর্ক তৈরি করতে সক্ষম হবেন।
  • খুবই কম খরচে মার্কেটিং করতে পারবেন।
  • আপনার ব্যবহৃত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে টার্গেটেড ক্যাম্পেইন করতে পারবেন।
  • কম খরচে অধিক মুনাফা অর্জন; করা যায়।
  • সহজেই ব্যবসার গতিবিধি সহজে বুঝতে পারবেন।
  • সঠিক কাস্টমার টার্গেট করতে পারবেন।
  • আপনার ব্যবসা শুধুমাত্র নিজ দেশেই সীমাবদ্ধ নয়, বরং তা বিশ্বব্যাপী হবে।

এগুলো ছাড়াও আরো অনেক অনেক সুবিধা রয়েছে, যেগুলো একজন ডিজিটাল মার্কেটিং স্টিলড মানুষ খুব সহজেই তাঁর ব্যবসায় পেতে পারে। তাহলে আশা করা যায়, ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা সম্পর্কে মোটামোটি হলেও একটি ভালো ধারণা পেয়েছেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর অসুবিধা

  • মাঝে মাঝে ক্রেতা তাঁর অর্ডারকৃত অর্ডারের সাদৃশ্যপূর্ণ প্রোডাক্ট পায় না। অর্থাৎ সাইজ-কালার বিভিন্ন কিছুর তারতম্য হয়ে থাকে।
  • অনেক ই-কমার্স রয়েছে, যেগুলো বিশ্বস্ত নয় এবং গ্রাহকদের সাথে নানা রকম অফার নিয়ে প্রতারণা করে থাকে। যেমন – Evaly

এগুলোই হলো মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং এর অসুবিধাগুলো। তবে একটি বিষয় লক্ষ্যণীয় যে, গ্রাহক বা ক্রেতা যদি একটু সচেতন হয়, তাহলে তাঁরা এসব প্রতারণার শিকার হয় না। সেই জন্য এই সেক্টরে একটু সজাগ থাকতে হয়।

এগুলোই হলো মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা ও অসুবিধা। আশা করি ইতিমধ্যে আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে অনেক কিছুই জেনে গেছেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায়

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায়

বোধহয়, ডিজিটাল মার্কেটিং সার্চকৃতদের মাঝে সবচেয়ে কিউরিয়াস বিষয় হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায় নিয়ে। কিভাবে একজন নতুন বা বিগেইনার প্রথম অবস্থায় ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে পারে? এই নিয়ে ইন্টারনেটে নানা রকম আর্টিকেল পাবেন। যার অধিকাংশই হলো মূলত ফেইক। তাহলে কি একজন নতুন মার্কেটার ডিজিটাল মার্কেটিং শিখবে না। এর উত্তর হলো অবশ্যই শিখবে! কিন্তু কিভাবে শিখবে? শেখার উত্তম উপায় কি?

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায় হিসেবে প্রথমে আমি আপনাদের সকল নিউবিদের উপদেশ দিবো ইউটিউব এবং ফেজবুককে অনুসরণ করুণ। এখন প্রশ্ন আসতে পারে যে, এগুলোকে অনুসরণ করলেই কি ডিজিটাল মার্কেটিং শিখা যাবে? এর উত্তরটা স্পেসিপিক। বর্তমানে হাজারো ফেজুবক গ্রুপ ও ফেজ রয়েছে, যেগুলো ডিজিটাল মার্কেটিং রিলেটেড এবং প্রায় সবগুলোতেই ফ্রী ফ্রী সাহায্য করা হয়। আপনি যদি ফেসবুকে যেয়ে সার্চ বারে লিখেন Digital Marketing Bangladesh তাহলে আপনি অনেকগুলো গ্রুপ দেখতে পারবেন। সবগুলো গ্রুপে আপনি অ্যাড হয়ে যেতে পারেন। এবং যখনোই Facebook group গুলোতে জয়েন হয়ে যাবেন, তখন আপনি পূর্বের পোস্ট ও কমেন্টগুলো অনুসরণ করতে পারেন এবং সেখান থেকে অনেক বাস্তবমুখী ও প্রেক্টিকাল জ্ঞান অর্জন করতে পারেন ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপর। সুতরাং বোঝাতেই পারছেন যে, কিভাবে ফেজবুকের মাধ্যমে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে পারবেন।

এবার আসি YouTube এর মাধ্যমে কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং হাতে-কলমে শিখতে পারবেন। একই পদ্ধতি অবলম্বণ করে আপনি ইউটিউবের সার্চ বারে গিয়ে সার্চ করুণ How to learn Digital Marketing অথবা Digital marketing in Bangla . এগুলো লিখে সার্চ দিলে সেখানে অসংখ্য ভিডিও চলে আসবে। সেখান থেকে আপনি যেকেোনা একটি চ্যানেলকে ফলো করে তাদের দেওয়া সম্পূ্র্ণ প্লে-লিস্টের ভিডিও গুলো দেখে ফেলতে পারেন। এবং পাশাপাশি অন্য সকল আনুসাঙ্গিক ভিডিও গুলোও। এতে করে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা সহ নানা রকম খুঁটি নাটি সম্পর্কে অবগত হবেন। আর এভাবেই আপনি সহ একজন নিওবি খুব সহজেই ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে পারবেন। তবে আপনি যদি প্রিমিয়াম কোর্স করে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে চান, তাহলে আপনি এনশামীম সহ খালিদ ফারহানের কোর্সগুলো ফলো করতে পারেন। আশা করি ডিজিটাল মার্কেটিং শিখার উপায় নিয়ে সম্পূর্ণ একটি ধারণা পেয়েছেন। তাহলে এখন থেকে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায় হিসেবে উপরের পদ্ধতিগুলোকে অনুসরণ করতে পারেন এবং সম্পূর্ণ ভাবে ফ্রী কিংবা পেইড ওয়েতে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে পারেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে শেষ কথা

ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে শেষ কথা

আপনি যদি উপরোক্ত সমস্ত আলোচনাটি মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন, তাহলে আশা করি ইতিমধ্যে ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে আপনি বেশ ভালো একটি জ্ঞান পেয়েছেন। মনের মধ্যে থাকা অনেকগুলো প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গিয়েছেন। তাহলে আপনি কি সত্যিকার অর্থেই ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রতি আকর্ষিত অথবা সত্যিকার অর্থেই ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে চান? যদি উত্তর হ্যাঁ হয়, তাহলে অবশ্যই কমেন্টে তা জানাবেন। এতে করে একজন নিউবির জন্য পরবর্তী কোন কোন স্টেপগুলো দরকার হবে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে, সে সম্পর্কে ধারাবাহিক পর্ব আকারে আলোচনা হবে।  আর আজকের আলোচনা দ্ধারা কেমন উপকৃত হলেন,সেটাও জানাবেন। তাহলে সর্বপরি বলতে পারি যে, আজকের আর্টিকেল তথা ডিজিটাল মার্কেটিং কি বা কাকে বলে এবং শেখার সবচেয়ে সহজ উপায় সহ আনুসাঙ্গিক সকল ধরনের প্রশ্নের উত্তরগুলো পেয়ে আশা করি একজন বিগেইনার বা নিউবি বেশ ভালোভাবে উপকৃত হতে পেরেছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর

ডিজিটাল মার্কেটিং টিউটোরিয়াল কোথায় পাওয়া যায়?

সাধারণত ডিজিটাল মার্কেটিং টিউটোরিয়ালগুলো আপনি ইউটিউবের বিভিন্ন চ্যানেলের প্লে-লিস্টগুলোতে পেয়ে যাবেন। এছাড়াও আপনি স্পেসিপিক কিছু ফেজুবক পেজকে অনুসরণ করতে পারেন। সেখানে আপনি ধারাবাহিকভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর টিউটোরিয়ালগুলো পেয়ে যাবেন।

কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করে পণ্যের বিজ্ঞাপন তথা প্রচার করা হয়?

সাধারণত ফেজুবক, ইউটিউব এর অ্যাড ক্যাম্পেইন এর মাধ্যমে আপনি পণ্যের বিজ্ঞাপন করতে পারেন। আবার যদি অর্গানিকভাবে আপনি পণ্যেগুলো টার্গেটেড কাস্টমারের নিকট পৌঁছে দিবেন, তাহলে সে ক্ষেত্রে ওয়েবসাইটের সহায়তা নিতে হবে।

ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে আরো জানতে

BanglaTeach
E-HaqDigital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking, Religious and so on.

Leave a Comment