হাতে মেহেদি দেওয়ার নিয়ম ও কমন কিছু ভুল

BanglaTeach
E-Haq
Digital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking,...

Sharing is caring!

হাতে মেহেদি দেওয়ার নিয়ম
হাতে মেহেদি দেওয়ার নিয়ম

হাতে মেহেদি দেওয়া নিযম বলতে আপনি গাড় রং পেতে ও সুন্দর ডিজাইন করবেন কোন উপায়ে, সেটিকেই বোঝায়। এখন ধরুণ, কিছু দিন পর কোনো একটি উৎসব এবং হতে পারে সেটি ঈদ কিংবা পুজা। এই উ’ৎসবগুলোতে মেয়েরা তাদের হাত রাঙ্গাতে বেশ ভালোবাসে। শুধু মেয়েরাই নয়, বরং ছেলেদের ক্ষেত্রেও সেইম অবস্থা। এমতোবস্থায়, আমাদের অধিকাংশের হাতে মেহেদি লাগানো সঠিক নিয়ম না জানা থাকায় মেহেদি ডিজাইন করতে গিয়ে নানা রকমের ভুলের বা সমস্যার সম্মুখীন হই। মূলত এর থেকে উত্তরণের প্রেক্ষিতেই আজকের আমাদের এই আর্টিকেলটি। নিম্নে হাতে মেহেদি দেওয়ার নিয়ম নিয়ে ডিটেইলস আলোচনা করেছি। আশা করি তথ্যগুলো আপনাদের বেশ কাজে লাগবে।

হাতে মেহেদি দেওয়ার সঠিক নিয়ম

হাতে মেহেদি দেওয়ার সঠিক নিয়ম

কম-বেশি আমরা সবাই হাতে মেহেদি ব্যবহার করেছি। কিন্তু আমাদের মধ্যে খুব কম সংখ্যক ব্যক্তি আছে, যারা মেহেদির ব্যবহার করার পদ্ধতি বা উপায় নিয়ে ভেবেছি। কিংবা মেহেদি ব্যবহার করার সময় ভুলগুলো নিয়েও কম ভেবে থাকি আমরা। যাইহোক, ক্রমান্বয়ে আমরা প্রথমে হাতে মেহেদির দেওয়ার উপায় এবং এরপর কোন কোন ভুলগুলো এগিড়ে চলতে হবে, সে সম্পর্কে জানবো। তাহলে চলুন জেনে নিই মেহেদি হাতে দেওয়ার সঠিক নিয়মটি-

  • প্রথমে আমাদের দু’হাত ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে সাবান দিয়ে এবং পরোক্ষণে পানি দিয়ে। এরপর রোমাল বা টিস্যু দিয়ে হাত মুছে ফেলতে হবে।
  • এরপর 25-40 মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। তবে এই সময়ের মধ্যে অন্য কোনো কিছু ধরে হাত ময়লা বা অপরিষ্কার করা যাবে না। জাস্ট একটু রেস্ট নিতে পারেন।
  • এবার আপনি যে হাতে দিয়ে অন্য হাতে ডিজাইনের কাজ করবেন, সেই হাতে সম্ভব হলে হ্যান্ড গ্লাবস পড়ে নিন। এতে করে সেই হাতটিতে মেহেদির কোনো রকম দাগ বা স্পট পড়বে না।
  • এভার আপনি ইন্টারনেটে গিয়ে মেহেদি ডিজাইন লিখে ভালো ভালো কিছু ছবি দেখে সেখান হতে যেকোনো একটিি আকর্ষণীয় মেহেদি ডিজাইনের ছবি পছন্দ করুণ। অথবা আপনি যদি পর্ব থেকে আকর্ষণীয় ডিজাইন পছন্দ করে রাখেন বা মুখস্থ থাকে, তাহলে সেটি ডিজাইন করুণ।
  • মেহেদি ডিজাইন শেষ হলে কয়েক ঘন্টা অপেক্ষা করুণ। সাধারণত সেটি হতে পারে 8-12 ঘন্টা।
  • উক্ত সময় অতিবাহিত করার পর এবার আপনি জাস্ট পরিষ্কার পানি দ্ধারা হাত ধৌত করে ফেলুন।

উপরোক্ত স্টেপগুলো অনুসরণ করার মাধ্যমে আমরা হাতে মেহেদি দিতে পারি খুব সহজেই। তাই আপনিও যদি সঙ্কায় থাকেন যে, কিভাবে হাতে মেহেদি দিবেন, তাহলে জাস্ট উপরের পয়েন্টগুলো মান্য করতে পারেন।

আচ্ছা, এতোক্ষণ তো আমরা মেহেদি কিভাবে ব্যবহার করতে পারি সে বিষয়ে জানলাম, এবার চলুন মেহেদি দেওয়ার বা ব্যবহার করার সময় কোন কোন বিষয়গুলোর ‍উপর নজর রাখা উচিত, সে সম্পর্কে জানা যাক।

হাতে মেহেদি ব্যবহারের সতর্কতা সমূহ

হাতে মেহেদি ব্যবহারের সতর্কতা সমূহ

যদি আমরা উপরের দেওয়া নিয়মগুলো মান্য করে মেহেদি ব্যবহার করে থাকি, তাহলে আশা করি আশানুরূপ ফলাফল পাবো। তবে এই ক্ষেত্রে বেশ কিছু সতর্কতা আমাদের অবলম্বণ করতে হবে। কি সেই সতর্কতা সমূহ? চলুন সেগুলো জেনে নিই এক নজরে-

  • প্রথমে যে বিষয়টিকে বেশি প্রাধান্য দিতে হবে, সেটি হলো ভালো একটি ব্র্যান্ডের মেহেদি ব্যবহার করতে হবে। যা আমাদের হাতের ত্বক ও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর নয় এবং এর রং বেশ গাঢ় হয়ে থাকে।
  • দ্ধিতীয়টি হলো- কোনো ভাবেই অন্ধকার বা আবচা আলো বা কম আলোতে মেহেদি ডিজাইন করা ঠিক নয়। কেননা এতে করে ডিজাইনের ব্যাঘাত ঘটে। তাই পর্যাপ্ত পরিমাণ আলো রয়েছে, সেখানে হাতে মেহেদি ডিজাইন করতে হবে।
  • ডিজাইন করার সাথে সাথে মেহেদি মুছে বা ধুয়ে ফেলা যাবে না। অন্তত 6 ঘণ্টা হাতে রাখতে হবে ডিজাইন অবস্থায়।
  • তাড়াতাড়ি শুকানোর জন্য কোনো ভাবেই হেয়ার ডায়ার ব্যবহার করা যাবে না। এর ফলে ডিজাইন নষ্ট হয়ে যেতে পারে।
  • হাতে মেহেদি ব্যবহারের পর কোনো কিছু ধরা-ছোয়া হতে সাময়িক বিরতি থাকতে হবে। যেমন পানি খাওয়া, প্লেট ধরা, গ্লাস ধরা, পেট-পিঠ চুলকানো সহ ইত্যাদি কাজ হতে বিরত থাকতে হবে। অথবা অন্য কারো সাহায্য নিয়ে এসব কাজ করতে হবে।
  • নির্দিষ্ট সময় পর হাত পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন তবে এই ক্ষেত্রে অনেকে সাবান ব্যবহার করে। এটা থেকে অবশ্যই অবশ্যই বিরত থাকবেন। এতে করে মেহেদি কালারের মধ্যে সেকি ভাব চলে আসে। তাই শুধুমাত্র পানি ব্যবহার করুণ।
  • হাত ধোয়ার পর তেল, লেবুর রস এসব ব্যবহার করা হতেও বিরত থাকুন।

মূলত উপরের এই ভুলগুলো যদি আপনি এড়িয়ে যেতে পারেন, তাহলে আপনি হাতে সুন্দর ভাবে মেহেদি ব্যবহারের পাশাপাশি সুন্দর একটি ডিজাইনও উপহার পাবেন। তবে মনোযোগ সহকারে সতর্কতাসমূহগুলো পুনরায় পড়তে পারেন।

এখন হয়তো আপনি জেনে গেছেন যে হাতে মেহেদি দেওয়ার নিয়ম ও সতর্কতা বা ভুলগুলো সম্পর্কে। যাইহোক, যেহেতু বিভিন্ন অনুষ্ঠান-উৎসবে আমরা হাত ও পায়ে মেহেদি ডিজাইন করে থাকি, সেই দিক থেকে মেহেদি দেওয়ার নিয়ম ও সতর্কতাগুলো আগ থেকে জেনে রাখা কল্যাণকর হবে। আর এই কারণেই আজকের আর্টিকেলের মূল প্রতিপ্রাধ্য বিষয় হলো এগুলোই। সর্বপরি বলা চলে যে, আপনি যদি সম্প্রতি হাতে মেহেদি ব্যবহার করবেন ভাবছেন, তাহলে উক্ত আর্টিকেলগুলো দ্ধারা চমৎকারভাবে উপকৃত হতে পারবেন।

হাতে মেহেদি দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে আরো জানতে

BanglaTeach
E-HaqDigital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking, Religious and so on.

Leave a Comment