দৈনিক পড়ার রুটিন hsc – সকাল হতে রাত্র পর্যন্ত ধারাবাহিক পড়ার রুটিন

BanglaTeach
E-Haq
Digital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking,...

Sharing is caring!

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc
দৈনিক পড়ার রুটিন hsc

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc বা সহজে বললে একজন এইচএসসি পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীর জন্য রুটিন, যা মান্য করে বা অনুসরণ করার মাধ্যমে তাঁর দৈনন্দিন পড়াগুলো সে কাভার করার পাশাপাশি ভালো একটি জীবন লীড করতে পারে। আর আজকের আর্টিকেলে আমরা এমন একটি রুটিন তৈরি করে দেখাবো, যা একজন HSC পরীক্ষার্থীর নিকট বেশ উপকারক হবে।

যদিও আজকের আর্টিকেলটি বিশেষ করে এইচএসসি HSC স্টুডেন্টদেরকে টার্গেট করেই তৈরি, তবে যদি অন্য শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের উক্ত রুটিনে বর্তমানের দৈনন্দিন জীবনকে খাপ-খাওয়ানো যায়, তবে আপনিও নিম্নোক্ত পড়ার রুটিনটি অনুসরণ করতে পারেন। তবে তা একান্ত আপনার ব্যাপার। তাহলে চলুন, আলোচনা বিলম্ব না করে মূল আলোচনায় প্রবেশ করা যাক। ( প্রতিবেদন লেখার সঠিক নিয়মকিছু শিক্ষামূলক উক্তি সম্পর্কে জেনে নিন )

নোট: দৈনিক পড়ার রুটিন hsc আর্টিকেলে যে রুটিনটি শো করা হবে, সেটি যে বাধ্যতামূলক প্রত্যেক স্টুডেন্টকে মান্য করতে হবে এবং ফলো করতে হবে, ব্যাপারটা মোটেও এমন নয়। আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী, পরিস্থিতি, টাইম মেইনটেইন সহ সুযোগ সুবিধা বিবেচনা করে আপনি নিজেও একটি সুন্দর দৈনিক পড়ার রুটিন তৈরি করে নিতে পারেন।

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc ছাত্র-ছাত্রীদের

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc ছাত্র-ছাত্রীদের

এই ক্ষেত্রে আমরা দৈনিক পড়ার রুটিনকে দিনের ৩টি ভাগে ভাগ করে নিতে পারি। আর সেভাবে দৈনিক পড়ার রুটিন hsc টা সাজাতে পারি। আর সেগুলো হলো-

  • সকালে hsc পড়ার রুটিন
  • বিকালে hsc পড়ার রুটিন
  • রাত্রে hsc পড়ার রুটিন

মূলত এই তিনটি ভাগে ভাগ করে আমরা যারা যারা HSC শিক্ষার্থী রয়েছি, তাঁরা খুব সুন্দরভাবে পড়তে পারি। তাহলে চলুন প্রথমে সকালে, বিকালে ও রাত্রে পড়ার রুটিন সম্পর্কে জেনে নিই এবং এরপর আমরা একটি চার্টের মাধ্যমে তা তুলে ধরার চেষ্টা করবো।

সকালে hsc পড়ার রুটিন

অতি সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠার অভ্যাস গড়ে তুলুন। আপনি যে ধর্মাবল্বী হোন, সে ধর্মের প্রার্থনা করুন। যদি মুসলিম হোন, তাহলে ফজরের আজান দেওয়ার পূর্বে ঘুম থেকে উঠার চেষ্টা করুণ। ঘুম থেকে উঠে ফজরের নামাজ আদায় করে ১০-২০ মিনিট সতেজ বাতাসের মাঝে বাহিরে হাঁটুন। এরপর আপনি চাইলে ব্যায়ামও করতে পারেন। অন্যথায় সাথে সাথে পড়তে বসে যান। একটানা অনেকক্ষণ পড়বেন না। এতে করে আপনার ব্রেনের উপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি হবে। যা পড়া মনে না রাখার জন্য অন্যতম একটি কারণ। ৩০ মিনিট কিংবা ১ঘন্টা পর পর ৫-১০ মিনিটের জন্য ছোট্ট একটি বিরতি নিন। তবে এইক্ষেত্রে একটি জিনিট অত্যন্ত লক্ষণীয় যে, উক্ত বিরতীর সময়ে কোনো ভাবেই মোবাইল হাতে নেওয়া যাবে না। অনেকে ভাবে, এই সময়ে একটু ফেজবুকিং কিংবা ইউটিউবিং করলে হয়তো ব্রেইনটা আরো রিফ্রেশ হবে। কিন্তু বাস্তবিক অর্থে, উক্ত কারণে আপনার ব্রেইনে আরো চাপ সৃষ্টি হবে। আর যা আপনার পড়ালেখার নিদারুণ ক্ষতি হবে। তাই যথাসম্ভব এসব কিছু এরিয়ে চলুন। যদি একান্ত কোনো জরুরি কারণ না থাকে, তাহলে মোবাইলটিকে সাইলেন্ট করে রাখুন। এতে করে নোটিফিকেশন এর সাউন্ড আপনাকে মোবাইলের প্রতি আকর্ষিত করবে না। এভাবে সকাল ৮-৮:৩০ মিনিট পর্যন্ত পড়ার পর আপনি সকালের নাস্তা করে নিতে পারেন। কেননা ক্ষুধা পেটে মানুষ কোনো কিছুই মনে রাখতে পারে না। সেক্ষেত্রে আপনি খুব ভালো কিছু করতে পারবেন না খালি পেটে। এটা হলো সকালে পড়ার জন্য একজন HSC পরিক্ষার্থীর জন্য আদর্শ রুটিন।

বিকালে hsc পড়ার রুটিন

বিকাল হতে হতে তখন একজন hsc শিক্ষার্থী নিয়ম অনুযায়ী বাসায় চলে আসবে। তখন তাঁর প্রধান কাজ হচ্ছে হাত-মুখ ধুয়ে পরিষ্কার বা ফ্রেশ হওয়া। অথবা গোসল করে নেওয়া। গোসল শেষে ওজু করে যোহরের নামাজ আদায় করা। যোহরের নামাজ শেষে বিকালের খাবার খেয়ে একটু ঘুমিয়ে নিবে। ঘুম থেকে উঠার পর আবার পনুরায় পড়তে বসবেন। একটানা আছরের আগ পর্যন্ত পড়বেন। আর যখনই আছরের আজান দিবে, তখন পুনরায় নামাজ পড়ে পড়ার টেবিল ছাড়বেন। তখন আপনি একটি ঘুরতে পারেন। বন্ধু-বান্ধব সহ প্রতিবেশিদের সাথে টাইম-পাস করুন মাগরিবের আজানের আগ পর্যন্ত।

রাত্রে hsc পড়ার রুটিন

মাগরিবের নামাজ পড়ার পর আপনি হাল্কা নাস্তা করে নিবেন। এতে করে পড়ার মধ্যে আপনার অত্যধিক ক্ষিধা লাগবে না। এশার আজান পর্যন্ত পড়া-লেখা চালিয়ে যাবেন। যখন এশার আজান ‍দিবে তখন আপনি নামাজ পড়ার সাথে সাথে রাতের খাবার খেয়ে ফেলবেন। এতে করে বদ-হজম সহ নানা রকম অসুখ থেকে রেহাই পাবেন। খেয়ে পুনরায় পড়তে বসবেন। এখন বলতে পাড়েন যে, রাত্র কতক্ষণ পড়বেন? এটা ডিপেন্ড করে আপনার পড়া শেষ করার কেপাসেটির/ক্ষমতার উপর। যদি আপনি সে হোন, যার মুখস্থ শক্তি সহ বোঝার ক্ষমতা অনেক, তাহলে আশা করি আপনি রাত্র ১০-১১ টার মধ্যেই বিদ্যালয়ের সকল পড়ার পাশাপাশি ফোকাসড করা অতিরিক্ত পড়া পড়ে কাভার দিতে পারবেন। অন্যথায় আপনাকে এই জিনিসটিকে ঠিক করে নিতে হবে। তবে অবশ্যই মনে রাখবেন, যত সম্ভব রাত্রে তাড়াতাড়ি ঘুমানো যায়, ততোই ভালো। কেননা বিজ্ঞানিক গবেষণা দেখা গেছে যে, রাত্র ৮ থেকেই আমাদের মস্তিষ্কে মেলাটোনিন হরমোন নিঃস্বরণ হয় এবং তা রাত্র ১২-১টা পর্যন্ত অব্যহত থাকে। মেলাটোনিন হরমোন এর প্রধান কাজ হচ্ছে আমাদের জেগে থাকা বা ঘুমানোর যে সিস্টেম তা নিয়ন্ত্রণ করা, শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে ও প্রদাহ হ্রাস করা সহ ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা। সুতরাং HSC পড়ার রুটিন ফিলাপ করতে গিয়ে শরীরের ক্ষতি করা কোনো ভাবেই কাম্য নয়।

মূলত উপরের আলোচনাটিই হলো আজকের আর্টিকেলের মূল বিষয়। আশা করি একজন HSC পরিক্ষার্থী সহ শিক্ষার্থীরা বেশ ভালোভাবে বিষয়টি বোঝতে পেরেছে এবং উক্ত দিক-নির্দেশনাগুলো দ্ধারা বেশ ভালোভাবে উপকৃত হতে পারবে।

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc একটি চার্ট

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc একটি চার্ট
দৈনিক পড়ার রুটিন hsc
সকালের HSC শিক্ষার্থীর পড়ার রুটিনঘুম থেকে উঠা, নামাজ পড়া, ১৫-২০ মিনিট হাঁটা, পড়তে বসা এবং তা টানা ৮-৮:৩০ পর্যন্ত পড়া। এর পর নাস্তা করা এবং বিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হওয়া। যদি বিদ্যালয় বন্ধ থাকে, তাহলে বাকি সময় অন্য সকল ক্রিয়েটিভ কাজ সহ পড়ালেখার সময় বের করা।
বিকালের HSC শিক্ষার্থীর পড়ার রুটিন এরপর মাগরিব পর্যন্ত চলাপেরা করা, বাহিরে ঘরা সহ প্রতিবেশীদের টাইম দেওয়া।
রাত্রে HSC শিক্ষার্থীর পড়ার রুটিনমাগরিবের নামাজ পড়ে হাল্কা নাস্তা করে পড়তে বসা এবং এশার নামাজ পড়ে খেয়ে পুনরায় পড়তে বসা। এবং পড়া শেষ করা।

মূলত এটাই হলো আজকের আর্টিকেলের টেবিলের মাথ্যমে দৈনিক পড়ার রুটিন hsc শিক্ষার্থীদের জন্য একটি আদর্শ রুটিন। তবে আপনিও উক্ত রুটিনটি পুনরায় আপনার সময় ও পরিস্থিতি অনুযায়ী যাচাই করে নিতে পারেন। এমন কিছু থাকলে অ্যাড করতে পারেন বা কিছু জিনিস পরিহার করেও দিতে পারেন। যা সম্পূর্ণ আপনার উপর নির্ভর করে। আশা করি আজকের দৈনিক পড়ার রুটিন hsc বিষয়টি বোঝতে পেরেছেন।

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc নিয়ে শেষ কথা

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc নিয়ে শেষ কথা

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc আজকের আর্টিকেলে আমরা একজন এইচএসসি পরীক্ষার্থীর জন্য উপযুক্ত রুটিন দেখানোর চেষ্টা করেছি। আজকের রুটিনটি দ্ধারা আশা করি সর্বপরি সকল স্তরের স্টুডেন্ট উপকৃত হতে পারবে। কেননা এখানে এমন কিছু উল্লেখ করি নি, যা এক শ্রেণীর শিক্ষার্থীর জন্য সহ হবে এবং আরেক শ্রেণীর শিক্ষার্থীর জন্য সহজ হবে। আশা করি বিষয়টি সকলেই বোঝতে সক্ষম হয়েছেন। সুতরাং আপনি যদি সত্যিই দৈনিক পড়ার রুটিন hsc শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন এবং তা সার্চ দিয়ে থাকনে, তাহলে আশা করি আজকের আর্টিকেলটি দ্ধারা আপনি সহ সকল পাঠক বেশ চমৎকারভাবে উপকৃত হতে পারবে।

দৈনিক পড়ার রুটিন hsc সম্পর্কে আরো জানতে

BanglaTeach
E-HaqDigital Marketer at- BanglaTeach

E-Haq is the founder of BanglaTeach. He is expertise on Education, Health, Financial, Banking, Religious and so on.

Leave a Comment